Monday, February 7, 2022

যৌবন এর খেলা পাশের বাড়ীর অ্যান্টির সাথে - Bangla Choti golpo

মিলু সাতসকালেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে পরলো। আজ কলেজের নবীনবরন উৎসব। মিলুদের ব্যাচ এবার ফাইনাল ইয়ার। তাই জুতোসেলাই, চন্ডীপাঠ ও আরও যা যা কাজ আছে সবই ওদের ঘাড়ে। মিলু, ওর বেস্টফ্রেন্ড অদিতি ও আরও ছয়জন ছেলেপিলে মিলে একটা গ্রুপ। ওরা স্টেজ ও ডেকরেশনের দায়িত্বে আছে। রাস্তায় নেমে মিলু দৌড়াতে শুরু করলো। লেট হয়ে গেছে, অদিতিটা ঝাড় দেবে। তারাতাড়ি অদিতিদের বাড়ি পৌঁছে একসাথে অটোতে যাবে দুই অভিন্নহৃদয় বন্ধু।বিকেলবেলা থেকে নবীনবরন অনুষ্ঠান শুরু হলো কলেজের পিছনের মাঠে। অথিতিরা আসতে শুরু করলেন, তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ আবার এই কলেজের প্রাক্তন ছাত্র, তাঁদের আজ সম্বর্ধনা দেওয়া হবে। 

যৌবন এর খেলা পাশের বাড়ীর অ্যান্টির সাথে - Bangla Choti golpo
যৌবন এর খেলা পাশের বাড়ীর অ্যান্টির সাথে - Bangla Choti golpo



মিলু আজ তার মায়ের একটা ধনেখালি শাড়ী পড়েছে। সাথে ম্যাচিং ব্লাউজ। দুপুরে দু’ঘন্টার জন্য বাড়ি এসে মায়ের হালকা বকাবকি শুনতে শুনতে স্নান-খাওয়া করেই সাজগোজ করে আবার দৌড়েছে কলেজে। অনেক ছেলেরা সরাসরি বা আড়চোখে তাকিয়ে দেখছিল ওকে। টুলটুলে মুখ, সাড়ে পাঁচফুট ছুঁইছুঁই, স্বাস্থ্যবতী একুশ বছরের মিলুকে অনেক ছেলেই ট্রাই করেছে, কিন্তু ও কাউকেই পাত্তা দেয় নি। মনে ধরেনি কাউকে সেভাবে। ওর বেস্টফ্রেন্ড অদিতি অবশ্য একটা বয়ফ্রেন্ড জুটিয়েছে সম্প্রতি। সন্ধ্যেবেলা অনুষ্ঠান বেশ জমে উঠলো। খুব সুন্দর ভাবে স্টেজ সাজিয়েছে মিলুরা, অনেকেই প্রশংসা করেছে কাজের। একটু টয়লেটে যাওয়া প্রয়োজন হয়ে পরেছিল মিলুর। অদিতিকে বলে ও লেডিস-রুমে এল। স্বাভাবিকভাবেই কেউ নেই সেখানে, সবাই অনুষ্ঠান দেখছে বাইরে। করিডরে টিউব জ্বলছে। মিলু দেখলো লেডিস-রুমের আলো জ্বলছে না, কিন্তু ভিতরের টয়লেটের আলো এসে পড়েছে রুমের মধ্যে। মিলু আর রুমের আলো জ্বালালোনা- এখুনি তো বেরিয়ে যাবে- ভেবে টয়লেটে ঢুকলো।


Bangla Choti Golpo 2022 গুদের পাপড়িতে চুমু দিলাম

টয়লেটের দরজা খুলে এসে বেরিয়ে শাড়ীর আঁচলটাকে কাঁধের উপর ঠিকমতো পিন দিয়ে লাগাতে যাবে… ঠিক এইসময় মিলুর মনে হল পিছনে কেউ এসে দাঁড়িয়েছে। পিছন ফিরে দেখতে যাবার আগেই কেউ যেন মিলুর মুখ চেপে ধরল শক্ত হাতে। চমকে উঠল মিলু, ছাড়াবার চেষ্টা করল নিজেকে। কিন্তু আগন্তুক পুরুষটি বলবান। মুখ চেপে ধরেই মিলুকে টানতে টানতে নিয়ে চললো লেডিস-রুমের পিছনের অংশটায়। উপুড় করে আছড়ে ফেললো মিলুকে মেঝেতে আর একটা কাপড় বা রুমাল জাতীয় কিছু দিয়ে চট্ করে মিলুর মুখটা বেঁধে দিল- চেঁচাবার উপায় রইল না আর। এবার কামুক পুরুষটি শুরু করল মিলুকে নিপীড়ন করা। নিজেকে ছাড়ানোর আপ্রান চেষ্টা করল মিলু, কিন্তু পুরুষটি ছাড়লো না তাকে, চিৎ করে ফেলে তীব্রভাবে ঝাঁপিয়ে পড়লো মিলুর উপর। ছিঁড়ে দিল তার একুশ বছরের নরম বুকের বক্ষাবরণী, হাতদুটিকে পিছমোড়া করে চেপে ধরল এক হাতে, অন্য হাতে মিলুর উরুসন্ধি পর্য্যন্ত শাড়ী গুটিয়ে তুললো এবং সম্পুর্নভাবে পেনিট্রাইজ করলো নিজেকে ওর আদ্যন্ত কুমারী শরীরে। একটা তীব্র ব্যথার ঝলকানি বয়ে গেল মিলুর দেহে, যোনিপথের মধ্যে লঙ্কাবাটার মত জ্বলতে লাগলো ওর। যন্ত্রনায় চোখ দিয়ে জল বেরিয়ে এল মিলুর। ক্রমশ অবশ হয়ে এল মিলুর শরীর ও মন। ওর শরীরের উপরে ঝুঁকে পড়ে কামুক পুরুষটি সজোরে সম্ভোগ করছিলো ওকে। জ্ঞান হারানোর ঠিক আগে ঘরের আবছা আলোয় মিলুর দৃষ্টিতে ভেসে উঠলো সম্ভোগকারী পুরুষটির বাঁ কাধ। একটি মাঝারি লাল জরুল সেখানে, যেন সমুদ্রের মাঝখানে একটি দ্বীপ।


Read The Complete Story - Here



শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: